Login to your account

Username *
Password *
Remember Me
Monday, 03 August 2020 05:24

জিয়ার গরু মোটা তাজা করন VS শেখ হাসিনার আর্মি মোটা তাজা করন প্রকল্প! Featured

✍ মৃত্যুঞ্জয়ী মাতুব্বর .

সৃষ্টির আদি কাল থেকে ইন্ডিয়ান সাবকন্টিনেন্টে গরু পালনের মুখ্য উদ্দেশ্য ছিল হাল চাষ করা। দুধ ছিল তাদের বাড়তি পাওনা।
আর্মি বা সৈন্য বাহিনী প্রাগৈতিহাসিক কাল থেকেই একদল রুক্ষ কঠিন মৃত্যুঞ্জয়ী অকুতোভয় বীরের সংমিশ্রণে গড়ে ওটা একটি বাহিনী যারা দেশকে বহিঃশত্রুর হাত থেকে রক্ষা করতে হাসিমুখে জীবন বিলিয়ে দেয়। বাড়তি হিসাবে, এরা দেশের ভিতরে নানা দুঃস্বসময়ে মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে মানুষকে নির্ভয়ে যে কোন বাধা অতিক্রম করার উৎসাহ দিয়ে থাকে ।

কালের আবর্তে এখন মানুষ আর হাল চাষের জন্য গরু পোষেনা, উপরি হিসাবে দুধও পায়না। মানুষ এখন গরু পোষে, গরু মোটা তাজা করন প্রকল্পের অধীনে। কোরবানির ঈদ অথবা বিয়ে-শাদীর অনুষ্টনে এসব গরুকে জবাই করে মানুষ গোস্ত পোলাও সহ রকমারি খাবার তৈরী করে থাকে।
বাংলাদেশের আর্মিকে এখন আর বহির শত্রুকে মেকাবেলা করার জন্য প্রফেশনাল আর্মি হিসাবে পোষা হচ্ছেনা। না হচ্ছে, দেশের অভ্যন্তরীণ গুলযোগ মেকাবেলায় জনগণের অবতার হিসাবে আবির্ভুত হতে। অতীতে বিশ্বের নানা দেশে নির্বাচনে শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখার দায়িত্ব পালন করার এদের উদাহরণ আছে । অথচ ২০১৮ সালের সংসদ নির্বাচনে এরা নিজ দেশে জনগণের জান মালের প্রটেকশনের জন্য এগিয়ে আসাতো দূরের কথা, জনগণ এদের কাছে সাহায্য চাইতে গেলে এরা জনগণকে সন্ত্রাসীদের হাতে রেখে চলে গেছে।
বাংলাদেশের সেনাবাহিনীকে এখন আর সেনাবাহিনী হিসাবে পোষা হচ্ছেনা।
এদেরকে পোষা হচ্ছে প্রেসিডেন্ট প্রধান মন্ত্রীর ব্যক্তিগত নিরাপত্তা বাহিনী হিসাবে, বাড়তি দায়িত্ব হিসাবে যোগ হয়েছে সরকরের পক্ষে বিরুধী রাজনৈতিক নেতা কর্মীকে মোকাবেলা করা জন্য গুম , খুন সংঘটিত করা। বাহিনীর কেউ যদি এসবে অসন্তুষ্ট হয়?
কথায় আছেনা, দুষ্ট গরুর চেয়ে শূন্য গোয়াল ভালো। সরকার যখন দেখে কোন একজন বা কেউ সরকরের আদেশ শুনছে না , মোটাতাজাকরণ প্রকল্পের বেড়া ভেঙে বেড়িয়ে যেতে চায় তখন তাকে কোরবানির জন্য মান্নত করে ফেলে।
২৫ শে ফেব্রুয়ারি ২০০৯ তেমনি একদিন, রয়ের গুপ্তচরেরা পিলখানায় কোরবানির ঈদ উদযাপন করলো, বিনা দ্বিধায়, তারা সারি সারি আর্মি অফিসারকে কোরবানির মহিমায় মহিমান্বিত করেছে । বিনা রক্তপাতে পিলখানায় এক দিনেই ৫৭ জন আর্মি অফিসারের আত্মদান এটিতো ১৯৭১ সালের চেয়েও বড় ট্রাজেডি, পলাশীর চেয়েও হাজারগুন বড় দুর্যোগ।
মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ হচ্ছেন কোরবানির মহিমায় মহিমান্বিত আরেক অফিসার। হাসান শহীদ সরোয়ার্দিও আছেন এই লাইনে। হয়তো তার আর বেশি দিন বাকি নাই। শেখ হাসিনার আর্মি মোটা তাজা করুন প্রকল্পের তিনিও হয়ে যেতে পারেন আরেক কোরবানি।

Read 149 times Last modified on Monday, 03 August 2020 05:45
Rate this item
(0 votes)
  1. Popular
  2. Trending
  3. Comments

Calender

« September 2020 »
Mon Tue Wed Thu Fri Sat Sun
  1 2 3 4 5 6
7 8 9 10 11 12 13
14 15 16 17 18 19 20
21 22 23 24 25 26 27
28 29 30