Login to your account

Username *
Password *
Remember Me
Sunday, 26 July 2020 21:01

সরকার খারাপ লোকদের খোঁজে; নাকি, খারাপ লোকেরা চুম্বকের মত সরকারের চারিদিকে ভিড় করে?? Featured

Written by
shamim chowdhury

editor: Tribute71.com

রাষ্ট্রের কেন্দ্রে সাহেদ, সম্রাট, পাপিয়াদের অবারিত শক্তির মহড়া দেখে এটি ধারণা করা যায়, " এই রাষ্ট্রে যে যত বেশি খারাপ, সে তত বেশি শক্তিশালী।"
এটি আশ্চৰ্য্যজনক হলেও সত্য আজ রাষ্ট্রে মানুষের প্রভাব প্রতিপত্তি মাপার মানদন্ড হয়ে দাঁড়িয়ে গেছে : 'কে কত বেশি খারাপ , কে কতবেশি নিচ' তার উপর!!
কখন থেকেই এটি রাষ্ট্রের অলিখিত আইন হয়ে দাঁড়িয়ে গেছে , কেউ কি বলতে পারবেন?
যে দিন থেকে ক্ষমতাসীনরা বুঝতে পারলো - তত্বাবধায়কের অধীনে নির্বাচন করলে ক্ষমতায় যাওয়া যাবেনা, আর যে করেই হোক ক্ষমতার কেন্দ্রে থাকার জন্য ভিন্ন পথে হাটা শুরু করলো , সে দিন থেকেই। তখনকার প্রধান বিচারপতি আবুল খায়েরকে ত্রাণের নামে বিরাট অংকের টাকা ঘুষ, আর অবসরে চাকুরীর নিশ্চয়তা দিয়ে তত্বাবধায়কের আইন তারা বাতিল করিয়ে নিলো ।
কেউ যাতে আইনের এই ধারা বাতিলের বিরুদ্ধে মিছিল মিটিং বা কোন ধরণের প্রতিরোধ করতে না পারে সে জন্য পুলিশ, আর্মি , বিজিপি, এমন কি প্রশাসন ক্যাডারে দুষ্ট লোকদের প্রমোশন দিয়ে ক্ষমতার একেবারে পাশে নিয়ে আসা হয়েছে। এরা সরকারকে এখন সেইফ গার্ড দিচ্ছে।
শীর্ষ সন্ত্রসী জুসেফ, অগণিত হত্যা মামলার মৃত্যুদন্ড প্রাপ্ত আসামি , তার ফাঁসির দন্ড মওকুফ করে , তার ভাইকে করা হলো আর্মি চিফ। বিজিপির প্রধান করা হলো এমন একজনকে যিনি সম্রাটের সাথে সব সময় উটবস করতেন - তার সাথে অবৈধ ব্যবসায়িক সম্পর্ক আছে।
মোল্লা নজরুল, এখন ঢাকার ক্রিমিনাল ইনভেস্টিগেশন ডিপার্টম্যান্টের প্রধান। সে এক ব্যবসায়ীর বাসায় রাতের আঁধারে হানা দিয়ে, তাকে হাত পা বেঁধে -মেরে পিটে ক্রস ফায়ারের ভয় দেখিয়ে কয়েক কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছিল। এই অপরাধের কারণে সে চাকুরী থেকে সাসপেন্ডও হয়ে ছিলো । এখন তাকে বিরাট বিরাট প্রমোশন দিয়ে একেবারে সরকারের কাছে নিয়ে আসা হয়েছে।
হারুনুর রশিদ, নারায়ণ গঞ্জ থেকে সাসপেন্ড হয়েছিলেন ,টাকার জন্য ঢাকার এক ব্যবসায়ীর বৌ বাচ্চাকে রাতের আঁধারের বাসা থেকে তোলে নিয়ে, রাস্তায় ড্রাঙ্ক অবস্থায় এরেস্ট করার মিথ্যে মামলা দেওয়ার জন্য। তার কোন ধরনের শাস্তিতো হয়-ই-নি উল্টো তাকে প্রমোশন দিয়ে ঢাকায় নিয়ে আসা হয়েছে। এগুলো যেন গ্রাম্য চেয়ারম্যান-মেম্বারের করা ভিলেজ পলিটিক্সের মত।
গ্রামের কেউ ছোট খাট অন্যায় (চোরি-চামারি ) করলে মুরব্বিরা পঞ্চায়েত-সালিস বসিয়ে তাকে সুস্ত পথে নিয়ে আসেন। কিন্তু মাঝে মধ্যে গ্রামে এমন কিছু জঘন্য প্রকৃতির মানুষের উদ্ভব হয়, যারা নিতান্তই খারাপ , মুরব্বিরা তাদের বিচার-সালিস কোন কিছু করতে পারেননা।
তাদের বিচার সালিস করার জন্য মুখাপেক্ষী হতে হয় স্থানীয় ইউপি মেম্বার-চেয়ারম্যানদের। নানা বিধ সমাজ বিধ্বংসী খারাপ কাজের জন্য তারা শাস্তি পায়, চেয়ারম্যান/মেম্বার নিজ মুখে সেই দণ্ডের কথা ঘোষণাও করেন, তারপর নিজ হাতে শাস্তি দেবেন বলে চেয়ারম্যান/মেম্বার সালিস থেকে দুষ্কৃতকারীকে নিজের সাথে নিয়ে, চলে যান।
চেয়ারম্যান-মেম্বার এই দুষ্কৃতিকারীকে শাস্তি না দিয়ে রাতে নিজ বাড়িতে পেট ভরে খাবারের ব্যবস্থা করেন। "আজ বিচারে আমি যদি না থাকতাম তাহলে তোমার কি অবস্থা হতো, বুঝতে পেরেছো?? " কথায় কথায় তাকে এটাই বুঝতে চান যে তিনিই তাকে রক্ষা করেছেন। তারপর থেকে সে চেয়ারম্যানের সাথে ছায়ার মত লেগে থাকে। তিনি যা বলেন তা ই সে করে। কাউকে মারতে বললে মারে, কাটতে বললে কাটে। চেয়ারম্যানের কথার সামান্য অবাধ্য হতে গেলেই চেয়ারম্যান তার শাস্তির খর্গের কথা স্মরণ করিয়ে দেন।
এই শাস্তির মুলা ঝুলিয়ে চেয়ারম্যান তাকে দিয়ে সমাজে অনেক দুস্কর্ম করিয়ে থাকেন। আজকের আওয়ামীলীগ সরকার দেশের ছোট বড় সব দুস্কৃকারীকে নিজের পকেটে তোলে নিয়েছে চেয়ারম্যান-মেম্বারদের মত তাদরে দিয়ে সব ধরনের দুস্কর্ম করানোর জন্য।
যে প্রশ্নটি সবার মাথায় আজ ঘুরপাক খাচ্ছে তাহলো,
সরকার কি খারাপ লোকদের খোঁজে খোঁজে নিজের কাছে টেনে নিচ্ছে, নাকি সরকার চুম্বকের মত , খারাপ লোকেরা নিজ থেকেই সরকারের পাশে এসে ভিড় জমাচ্ছে?
আসলে সরকারই নিজ প্রয়োজনে এদের নিজেদের কাছে নিয়ে এসেছে।

Read 137 times Last modified on Monday, 27 July 2020 05:34
Rate this item
(1 Vote)
  1. Popular
  2. Trending
  3. Comments

Calender

« September 2020 »
Mon Tue Wed Thu Fri Sat Sun
  1 2 3 4 5 6
7 8 9 10 11 12 13
14 15 16 17 18 19 20
21 22 23 24 25 26 27
28 29 30